দিনের আলোয় দেখেছিলুম ………… প্রথম আলোর অন্ধকার ………।

সপ্তাহের প্রতিদিন ভোরে উঠা অভ্যাস ৷ ভোর আমার প্রিয় বলে ৷ কাজে যাবার আগে এক কাপ চা, নিজের কিছু পড়াশোনা আর পায়ের কাছে সকালের একটুকরো রোদের লুটোপুটি খেলা, একান্ত কিছু আনন্দ ৷ যান্ত্রিক পৃথিবীর অবসরে আপন করে কিছু একটায় নিঃশাস ফেলা ৷ কিন্তু আজ ভোরটি একটু অস্থির, একটু চঞ্চল হয়ে উঠলো ৷ দু’কাপ চা খেয়েও সুস্থির হতে পারছিলাম না ৷

প্রথম আলোর একটি খবরকে ঘিরে চিন্তাটাও ঘুরতে লাগলো ৷ দু’দিন আগে প্রথম খবরটা চোখে পড়ে ৷ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিবির এবং ছাত্রলীগ-পুলিশ এর যৌথ সংঘর্ষের খবর ও ছবি ৷ ওই ছবিটিতে অস্ত্র হাতে একজন লোকের ছবি ছাপিয়ে বলা হয় শিবিরের হাতে এই অস্ত্র কোথা থেকে এলো …. ছবি এবং লেখা দিয়ে হাজার হাজার মানুষের মনে শিবির সম্পর্কে একটা ধারণা দিয়ে উস্কে দেয়ার চেষ্টা করা হলো ৷ আমার মত হাজার হাজার লোক এই খবরে চমকে উঠলো ৷

কিন্তু চমকটা আজ সকালেই মহা চমক হয়ে দেখা দিল ৷ ফেইসবুক এ দেখতে পেলাম ওই ঘটনার পুরো ভিডিও ক্লিপ, আদ্যপান্ত, কিভাবে-কি নির্মম ভাবে পুলিশ-ছাত্রলীগ পাশাপাশি দাঁড়িয়ে বন্য হাতি শিকারের মত একদল নিরস্ত্র ছাত্রদের গুলি করতে করতে তাড়াচ্ছিল ৷ ভিডিও তে দেখলাম, আসলে ওই লোকটি ছিল আওয়ামীলীগ-ছাত্রলীগ আর পুলিশ-এর হামলার একটি অংশ, পেছনেই ছিল বাকিরা সবাই, পাখি শিকারের মত শিবিরের ছেলেগুলোর উপরে গুলি করছে ; নিজেকে ধিক্কার দিলাম, এ কোন সভ্যতায় আমরা, এ কোন মিথ্যাচারের নিষ্ঠুর বন্দনা !!

অবাক হয়ে ভাবলাম, কেন প্রথম আলো এত বড় মিথ্যাচার করলো, ধরা পড়ে না বলে এইরকম আর কত মিথ্যাচার প্রতিদিন করছে মতিউর রহমান !! কেন আমার দিনের প্রথম আলোটিকে বদলে দেবার আওয়াজ তুলে প্রথম আলো নামক পত্রিকাটি এমন করে কালো করে দিল !!

প্রতারণা দিয়ে, মিথ্যে দিয়ে – আর যাইহোক মানুষ বদলানো যায়না ৷ মানুষের ভিতরে রূপটি সবসময় সত্যের আলোতেই পরিবর্তনের মুখ দেখে, আর বাকি সব ঝ্যুট হ্যায়, ঝ্যুট হ্যায় …. ৷

বুঝতে চাইলাম, কেন মতিউর রহমান, আনিসুল হক, জাফর ইকবালরা এমনসব মিথ্যাচার প্রতারণা দিয়ে একটা সত্যকে দাঁড় করাতে চাইছে, এত এত বই, এত রাশিরাশি জ্ঞান, ঠিক কোথায় তাদের অবস্থান ??

উত্তরটা শতবছর আগে রবীন্দ্রনাথ তার ‘প্রায়শ্চিত্ত’ নামক গল্পটিতে বলে গেছেন ৷ গল্পের নায়ক তথাকথিত আধুনিক শিক্ষিত বিলাত ফেরত অনাথবন্ধুর মুখ দিয়ে রবিবাবু বললেন, “সমাজ যখন স্বেচ্চাপুর্বক মিথ্যা কথা শুনিতে চাহে তখন মুখের কথায় তাহাকে বাধিত করিতে দোষ দেখি না ৷ যে রসনা গরু খাইয়াছে সে রসনাকে গোময় এবং মিথ্যা কথা নামক দুটো কদর্য পদার্থ, দ্বারা বিশুদ্ধ করিয়া লওয়া আমাদের আধুনিক সমাজের নিয়ম ” ৷

হা, আমরা আজ মিথ্যাচারের মাধ্যম্যে এই আধুনিক শিক্ষিত মানুষগুলো দ্বারা আরো শিক্ষিত-শানিত হয়ে উঠছি ; সময়ের দাবিতে আজ আমরা একেকজন এক একটি মিথ্যার মশক ৷ কিন্তু, এমন করে প্রতারণা, প্রবঞ্চনা, মিথ্যা, অর্ধসত্য এইসব দিয়ে প্রথম আলো কতকাল আমারে মুড়, বধির করে রাখবে !! প্রতিবাদে সোচ্চার হতে ইচ্ছে হলো, পরক্ষনেই আব্রাহাম লিঙ্কনের সেই কথাটি মনে পড়ে গেল ” You can fool some of the people all of the time, and all of the people some of the time, but you can not fool all of the people all of the time.”

Advertisements